ইউটিউব এর ভিডিও কিভাবে ভাইরাল করবেন দেখে নিন ১ মিনিটেই?

ইউটিউব এর ভিডিও কিভাবে ভাইরাল করবেন দেখে নিন ১ মিনিটেই?আসসালামুয়ালাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারকাতুহ। কিভাবে একটি ভিডিও ভাইরাল করা যায় আমরা যারা ইউটিউবে কাজ করি তাদের অনেকেই এই প্রশ্নের সাথে কিভাবে লিঙ্ক করবেন তা ভাইরাল হয়ে যাবে। ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করলে ভিডিও ভাইরাল হবে না। ভিডিও ভাইরাল করার বেশ কিছু নিয়ম আছে। আপনি যদি নিয়ম মেনে চলেন, আশা করি ভিডিওটি ভাইরাল হবে।

যাইহোক, অনেক চ্যানেল আছে যাদের ভিডিও দেওয়া মাত্রই ভাইরাল হয়ে যায়। সাধারণত তাদের ভাইরাল হওয়ার কারণ হল তাদের চ্যানেলের লক্ষ লক্ষ গ্রাহক। আশা করি বুঝতে পেরেছো. কিন্তু যদি আমাদের চ্যানেলটি নতুন হয় এবং আমাদের চ্যানেলে কোন সাবস্ক্রিপশন না থাকে, তাহলে আমরা কি ভিডিওটি ভাইরাল করতে পারি না

ভাই, আমি এটা বলতে চাইনি। ইউটিউবে ভিডিও ভাইরাল করার বেশ কিছু নিয়ম আছে। আপনি যদি এই নিয়মটি অনুসরণ করেন তবে আপনার চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন বা না করুন। আশা করি ভিডিওটি ভাইরাল হবে ইনশাআল্লাহ। একটি ছোট চ্যানেল শুরুতে বাড়তে পারে না। তাকে বড় হওয়ার জন্য কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। অন্যথায় আপনার ভিডিও ভাইরাল হয়ে যাবে।

কিভাবে ইউটিউবে একটি ভিডিও ভাইরাল করব

ইউটিউব ভিডিও ভাইরাল করার বেশ কিছু নিয়ম আছে। আপনি যদি এই নিয়মগুলি মেনে চলেন তবে আপনার ভিডিওগুলি ভাইরাল হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। সবচেয়ে প্রয়োজনীয় এবং দরকারী নিয়ম নীচে দেওয়া হল:

ইউটিউব ভিডিও ভাইরাল করার জন্য SEO খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি আপনার ভিডিও ভাইরাল করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই আপনার ভিডিওতে SEO করতে হবে। যেহেতু আপনার কোন নতুন ইউটিউব গ্রাহক নেই, তাই ভাইরাল ভিডিওর জন্য আপনাকে অবশ্যই আপনার ভিডিওতে এসইও করতে হবে।

চ্যানেলের নাম:

চ্যানেল তৈরির আগে অবশ্যই তৈরি করতে হবে। আপনি আপনার চ্যানেলে যে ধরনের ভিডিও আপলোড করেন। সংশ্লিষ্ট চ্যানেলের নাম ব্যবহার করুন। এটি একটি ভিডিও ভাইরাল করার একটি খুব কার্যকর উপায়। তাই সবসময় আপনার ভিডিও চ্যানেলের টপিক রাখার চেষ্টা করুন।

যাইহোক, আপনার চ্যানেলের নাম আপনার ভিডিও থেকে আলাদা। যদি তাই হয়, আপনার ভিডিও কখনই ভাইরাল হবে না। ধরুন আপনার চ্যানেলটি মজার সম্পর্কিত। কিন্তু আপনি ভিডিও আপলোড করেন, ফুটবল রিলেটেড, রান্নার রিলেটেড, টেকনোলজি রিলেটেড ইত্যাদি।

এই ধরনের ভিডিও আপলোড করলে কখনোই আপনার ভিডিও ভাইরাল হবে না। তাই আপনার চ্যানেলের নাম অনুযায়ী আপনার ভিডিও আপলোড করতে ভুলবেন না।

নিজের মুখ ব্যবহার করা:

ইউটিউবে সবচেয়ে জনপ্রিয় মিডিয়া ভাইরাল ভিডিওগুলির মধ্যে একটি হল ভিডিওতে নিজের মুখ লাগানো। টার্গেট অডিয়েন্স আপনার মুখ দেখে অনেক বিশ্বাস করবে। এবং আপনার মুখের চেহারা আপনার ভিডিওকে আরো আকর্ষণীয় করে তুলতে পারে।

ভিডিওতে মানুষের সামনে নিজেকে ভালোভাবে ব্যাখ্যা করলে ভিডিওটিই প্রকৃত তথ্য। আপনি যা বলতে চান তা যদি তারা পছন্দ করে তবে তারা সর্বদা আপনার ভিডিও দেখবে। তাই আপনাকে অবশ্যই আপনার ভিডিওতে মুখ ব্যবহার করতে হবে। ভিডিও ভাইরালের জন্য আপনার নিজের মুখ খুবই কার্যকর।

ভিডিও শিরোনাম:

আপনি যদি আপনার ভিডিও শিরোনাম সঠিক না রাখেন তাহলে কেউ আপনার ভিডিও খুঁজে পাবে না। যদি আপনার ভিডিও রান্না সংক্রান্ত হয়। তারপর রান্না সংক্রান্ত শিরোনাম ব্যবহার করুন। কিন্তু যদি আপনি দেব শাকিব খান জিতের সাথে রান্না সংক্রান্ত ভিডিওতে এইগুলি ব্যবহার করেন। কিন্তু তারপর আপনার ভিডিও কখনো ভাইরাল হবে না।

তাই ভিডিওতে ভিডিও সম্পর্কিত শিরোনাম ব্যবহার করতে ভুলবেন না। এটি ভিডিও সহ মানুষের কাছে পৌঁছানোর একটি খুব কার্যকর পদ্ধতি। এমনকি আপনার ভিডিও ভাইরাল হতে পারে। তাই ভিডিওতে শিরোনাম ব্যবহার করতে ভুলবেন না।

লেখার বর্ণনা:

ভিডিও শিরোনাম পরবর্তী সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল বর্ণনা লেখা বা সাজানো। অনেক ইউটিউবার আছেন যারা ভিডিওতে বর্ণনা ব্যবহার করেন না। অবশ্যই, বর্ণনায় আপনার ভিডিও সম্পর্কিত কিছু লিখুন। আপনি আপনার বিবরণে আপনার পরিচয়, ভিডিও লিঙ্ক, সোশ্যাল মিডিয়া ইত্যাদি লিখতে পারেন।

তাছাড়া আপনি আপনার ভিডিও সম্পর্কিত কিছু হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করতে পারেন। আপনি পাঁচ থেকে আটটায় আপনার বর্ণনা ব্যবহার করতে পারেন। বর্ণনায় হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে ভিডিও ভাইরাল করার জন্য এটি একটি খুব কার্যকর পদ্ধতি।

ট্যাগ ব্যবহার করা:

আপনার ইউটিউব ভিডিও ভাইরাল করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। হ্যাঁ আল যে আমার কাছে বেশ বাজে শোনায়, মনে হচ্ছে বিটি আমার জন্য নয়।

এই পদ্ধতিটি বর্তমানে খুবই জনপ্রিয়। বড় ইউটিউবার রাও একমত যে ভিডিওতে ট্যাগগুলি ভাইরালের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই আপনার ভিডিওতে ট্যাগ ব্যবহার করতে ভুলবেন না। তাই অতিরিক্ত ট্যাগ ব্যবহার করবেন না যা আপনার ভিডিও ক্ষতি করতে পারে। আপনার ভিডিও সম্পর্কিত কিছু ট্যাগ ব্যবহার করুন। যা আপনার ভিডিও ভাইরাল হওয়ার জন্য খুবই উপকারী।

ভিডিও কনটেন্ট কোয়ালিটি:

আপনার ভিডিও কন্টেন্ট খারাপ হলে কেউ আপনার ভিডিও দেখবে না। যদি আপনার ভিডিও কারো সামনে আসে এবং সে ক্লিক করে এবং দেখে। এবং যদি সে ভিডিওটি খারাপ মনে করে, তবে সে এটি না দেখে দুই মিনিট এড়িয়ে যাবে।

সে আর কখনো আপনার চ্যানেলের ভিডিও দেখতে চাইবে না। তাই নিশ্চিত করুন ভিডিও বিষয়বস্তু এবং গুণমান সবকিছু সুন্দর। যাতে আপনি আপনার শ্রোতাদের ধরে রাখতে পারেন। এবং ভিডিওটি তথ্যবহুল করার চেষ্টা করুন। তাহলে আশা করি আপনার ভিডিওগুলো খুব সহজেই বৃদ্ধি পাবে।

আকর্ষণীয় থাম্বনেইল:

থাম্বনেইল দেখতে মানুষ আপনার ভিডিওতে ক্লিক করবে। হ্যাঁ, অনেক দর্শক আছেন যারা ভিডিওটির থাম্বনেল দেখে ভিডিওটি প্লে করেন। তবে অনেকেই থাম্বস ব্যবহার করেন। কিন্তু তাদের থাম্বস অনেক খারাপ। তাই আপনার ভিডিও আকর্ষণ করতে থাম্বনেইল ব্যবহার করতে ভুলবেন না।

শেষ কথা

পরিশেষে বন্ধুরা, আজকের নিবন্ধটি এতদূর। আপনি যদি নিবন্ধটি পছন্দ করেন তবে আপনাকে অবশ্যই এটি পছন্দ করতে হবে। এবং কমেন্ট করে আপনার মতামত আমাদের জানান। আপনি যদি নিবন্ধটি সম্পর্কে কিছু জানেন, দয়া করে মন্তব্য করুন এবং আমি সাহায্য করব। অবশেষে নিবন্ধটি পড়ার জন্য সবাইকে অনেক ধন্যবাদ। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন এবং নিরাপদে থাকুন। আমি আজকের মত বিদায় নিচ্ছি।

By Taher

আসসালামু-আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি-ওয়াবারাকাতুহু ।আমি মোঃ আবু তাহের ইসলাম (আমান)। আমি গয়াবাড়ি স্কুল এন্ড কলেজ পড়াশোনা করি । আমি এসএসসি পরীক্ষার্থী 2022 সাল । আমার সাবজেক্ট একাউন্টিং। আমি ভবিষ্যতে যেকোনো একটি ভালো প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে আমার জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী । আমার পুরো জীবনটা হচ্ছে, একটা সরল অংকের মত । যতই দিন যাচ্ছে ততই আমি সমাধানের দিকে যাচ্ছি ইনশাআল্লাহ......নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই https://dailyinfo71.com/ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি। ধন্যবাদ সবাইকে

Leave a Reply

Your email address will not be published.