ঈদ-উল আযহা,আর তো কয়েকদিন পরে তাই না? তারপরেই তো আমাদের সকলের তীব্র অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে ধীরে ধীরে ঘনিয়ে আসবে সময়। একে একে মুসলিমরা স্থানে স্থানে কুরবানির পশু
নিয়ে তৈরি হবে।

ত্বাকওয়া ভরা ঈদুল আযহা বা কুরবানির ঈদদেখবে ছুরিটাতে ধার দেওয়া হয়েছে কিনা। তারপর ‘‘আল্লাহু আকবার’’ বলে ছুরি চালিয়ে কুরবানী করবে সে হালাল পশুটাকে । সেই সাথে জবাই করবে মনের ভিতরে থাকা মানুষরূপী পশুটাকে। অন্তরটাকে ভরবে সেই মহান সত্ত্ব,চিরঞ্জিত ,চিরস্থায়ী , সর্বশক্তিমান,দয়াবান, আল্লাহর প্রতি এক বিশেষ অনুভূতি দিয়ে যার নাম তাকওয়া।

ঈদ উল আযহাঃ-

ঈদুল আযহা বা কোরবানির ঈদ মুসলিম জাতির কাছে এক বিশেষ দিন। মুসলমানদের কাছে বছরে দুইটি ঈদ উৎসব পালিত হয়।

  1. ঈদুল ফিতর
  2. ঈদুল আযহা

এছাড়াও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ দিন রয়েছে। ঈদুল আযহা হলো এমন একটি দিন যেদিন সারাবছর সমস্ত গ্নানী ,আত্ম অহংকার,অপকর্মকে মন থেকে দূরে সরিয়ে দেয়। ঈদ-উল-ফিতর এর করণীয় ফেতরা দেওয়া, ঠিক তেমনি ঈদুল আযহা হলো সামর্থ্য থাকলে কোরবানি দেওয়া।

কুরবানীর অতি সংক্ষিপ্ত ইতিহাস:-

কুরবানীর ইতিহাস সম্পর্কে আমরা কমবেশি জানি। তাই এখানে খুব সংক্ষেপে আলোচনা করা হবে। হযরত ইব্রাহীম (আঃ) এর যুগে যখন ইব্রাহিম আল্লাহকে খুশি করার জন্য একের পর এক পরীক্ষা দিয়েই চলছে। এমন একদিন স্বপ্নের তিনি দেখেন আল্লাহ তা’আলা তাঁর সবচাইতে প্রিয় বস্তু কুরবানীর করার আদেশ দিয়েছেন।উল্লেখ্য যে, হযরত ইব্রাহিম (আঃ) এর সবচেয়ে প্রিয় বস্তু ছিল উনার সন্তান হযরত ইসমাইল (আঃ) ।

তিনি বুঝতে পারলেন আল্লাহ কাকে কুরবানী করার কথা বলেছেন। কোন সাধারণ পিতা এমন অবস্থায় কখনোই তার স্বীয় সন্তানকে কুরবানীর করতো না।
কিন্তু হযরত ইব্রাহিম (আঃ) সেটা না করে বরং স্বয়ং আল্লাহ তায়ালার আদেশ অনুযায়ী পুত্র হযরত ইসমাইল (আঃ) এর সম্মতিক্রমে কুরবানী করতে নিয়ে যান ।না,এতে হযরত ইসমাইল (আঃ) আর দশজন পুত্রের মতো তার বাবাকে বাধা দেয়নি।

ত্বাকওয়া ভরা ঈদুল আযহা বা কুরবানির ঈদj
বরং রাস্তায় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল শয়তানরা। তারা উস্কানিমূলক কথা বলে ও নানাভাবে প্ররোচিত করার চেষ্টা করে। শেষ পর্যন্ত পাথর ছুড়ে মেরেও ব্যর্থ হয়। এদিকে হযরত ইব্রাহিম (আঃ) তার ধারালো ছুরি দিয়ে পুত্র ইসমাইল (আঃ) কে কুরবানী করার চেষ্টা করেন। কিন্তু আল্লাহ এই পরীক্ষায় সন্তুষ্ট হওয়ায় তার আদেশে ইসমাইল (আঃ) কোরবানি না হয়ে বরং একটি দুম্বা কোরবানি হয়ে যায়।

এ থেকে বোঝা যায় কতটা ত্বাকওয়া বা খোদাভীতি থাকলে মানুষ এই কাজটি করতে পারে। তাইতো হযরত ইব্রাহিম (আঃ) ও হযরত ইসমাইল (আঃ) সালামের এই ত্বাকওয়া যুগ যুগ ধরে মুসলমানদের মনে সঞ্চারণ করার জন্য আল্লাহ তাআলার আদেশে আমরা কোরবানি করি।

কুরবানী ও ত্বাকওয়াঃ-

ঈদুল আযহার দিনে টাকা দিয়ে কেনা একটা স্বাস্থ্যবান পশুকে জবাই করলেই কুরবানী হয় না বা এর মাধ্যমে মনে ত্বাকওয়া বা খোদাভীতি চলে আসে না। বস্তুত কুরবানীর মূল উদ্দেশ্যটাই হল ত্বাকওয়া অর্জন করা। মনে করুন আমার অনেক টাকা আছে বলে বড় স্বাস্থ্যবান একটা পশু কিনে আনলাম এবং জবাই করে গোশত খেলাম। এটা কিন্তু কুরবানী হলো না।

কেননা কুরবানীর জন্য আমি যে পশুটাকে সদ্য কিনে আনলাম এর বাহ্যিক মূল্য প্রতি আমার দরদ বা মায়া থাকলেও আসলে পশুটার প্রতি আমার তেমন মায়া না থাকায় হাসতে হাসতে আমরা সেটা জবাই করতে পারি। কিন্তু এতে আমার ত্বাকওয়া ততটা অর্জন হয় না। কিন্তু যদি আমি সেই একই মূল্যের একটা পশুকে দীর্ঘদিন কাছ থেকে লালন পালন করি তাহলে কিন্তু তার প্রতি আমার একটা অন্যরকম মমত্ববোধ কাজ করবে।

ত্বাকওয়া ভরা ঈদুল আযহা বা কুরবানির ঈদj

ঠিক এই পশুটাকে যখন আমি কুরবানী করতে যাব তখন আমার অনেক কষ্ট লাগবে। কিন্তু তারপরও তাকে আমার জবাই করতেই হবে একমাত্র আল্লাহ তা’আলার জন্য। তখন আমি ভাবব ,‘কেন আমি এটা করছি, কার আদেশে করছি, কাকে খুশি করার জন্য করছি, যাকে খুশি করতে চাচ্ছি তিনি আমার কাছে আর কি কি চান, আমার অন্য কোন কোন কর্মগুলোর জন্য তিনি অসন্তুষ্ট কিংবা তিনি ইচ্ছা করলে আমার কি করতে পারেন’; এভাবে যখন ভাবব তখন মহান আল্লাহর প্রতি আমার মনে একটা ভয়ের সৃষ্টি হবে।

এটাই খোদাভীতি, এটাই ত্বাকওয়া। এই ত্বাকওয়া থাকলেই কেবল আমি সব ধরনের অপকর্ম থেকে আল্লাহর পথে ফিরে আসতে পারবো। এটাই কোরবানির স্বার্থকতা।

By Taher

আসসালামু-আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি-ওয়াবারাকাতুহু ।আমি মোঃ আবু তাহের ইসলাম (আমান)। আমি গয়াবাড়ি স্কুল এন্ড কলেজ পড়াশোনা করি । আমি এসএসসি পরীক্ষার্থী 2022 সাল । আমার সাবজেক্ট একাউন্টিং। আমি ভবিষ্যতে যেকোনো একটি ভালো প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে আমার জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী । আমার পুরো জীবনটা হচ্ছে, একটা সরল অংকের মত । যতই দিন যাচ্ছে ততই আমি সমাধানের দিকে যাচ্ছি ইনশাআল্লাহ......নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই https://dailyinfo71.com/ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি। ধন্যবাদ সবাইকে

Leave a Reply

Your email address will not be published.