পড়া মনে রাখার সহজ উপায়-২০২১

পড়া মনে রাখার সহজ উপায়-২০২১

আমার পড়া মনে নেই বা আমি যা পড়ি তা ভুলে যাই। এই সমস্যাটি প্রায় সকল শিক্ষার্থীর মধ্যেই বিদ্যমান। অনেকে সঠিক নিয়ম না পড়লেও কিছু দিন পর ভুলে যান। আবার অনেকে পড়া মুখস্থ করার জন্য কিছু কৌশল ব্যবহার করে এবং দীর্ঘ সময় ধরে মুখস্থ করতে সক্ষম হয়। আপনি যদি সঠিক কৌশলটি না পড়েন তবে আপনি পড়তে ভুলতে পারেন। আপনাকে মনে রাখতে সাহায্য করার জন্য এখানে কিছু টিপস দেওয়া হল।

আগ্রহ তৈরি

আগ্রহ নিয়ে পড়তে বসলাম। গেম বা মুভি দেখার সময় আপনি যেমন আগ্রহ নিয়ে বসে থাকেন এবং জিতে যান, তেমনি পড়ার সময় আপনাকে ভেতর থেকে আগ্রহ তৈরি করতে হবে। এটা পড়া কঠিন, আমার মনে নেই, আমি বুঝতে পারছি না, আমাকে এই পূর্ব ধারণা থেকে বেরিয়ে এসে মাথা খালি করে বসে থাকতে হবে। পড়াশোনা আমাদের সবার জন্য কমবেশি কঠিন। এবং যদি এই কঠিন বিষয়টিকে মনে রাখা সহজ এবং উপযোগী করে তুলতে হয়, তাহলে অবশ্যই আগ্রহ থাকতে হবে। কারণ যে কাজটি আগ্রহী হবে না তা সঠিকভাবে সম্পন্ন হয় না।

কনসেপ্ট ট্রি

পড়ার জন্য মনে রাখার একটি ভাল কৌশল হল ধারণা গাছ। এইভাবে একটি বিষয় শেখার আগে, আপনাকে পুরো অধ্যায়টিকে সাতটি ভাগে ভাগ করতে হবে এবং প্রতিটি অংশের জন্য একটি লাইনে সারাংশ লিখতে হবে। তারপর বইয়ের একটি গাছের গাছের পাতায় সাতটি সারাংশ লেখা উচিত। তারপর পৃষ্ঠাগুলিতে দৈনন্দিন এক নজর আপনাকে অধ্যায়ের সম্পূর্ণ ধারণা দেবে। এটি একটি পরীক্ষিত এবং পরীক্ষিত বৈজ্ঞানিক ধারণা।

কী ওয়ার্ড 

যে কোন বিষয়ের কঠিন অংশ সহজেই ছন্দ আকারে মনে রাখা যায়। উদাহরণস্বরূপ, রংধনুর সাতটি রং মনে রাখার সহজ কৌশল হল ‘বেনিয়াসহকাল’ শব্দটি মুখস্থ করা। শব্দটির সাতটি রঙের প্রথম আদ্যক্ষর রয়েছে। একইভাবে, যদি আপনি ইংরেজি শব্দ ‘লেফটেন্যান্ট’ ((Lie, u, ten, ant)) এর বানান মনে রাখেন, তাহলে ‘মিথ্যা আপনি দশ পিঁপড়া’ মনে রাখলে বানান হয়ে যাবে।
একটু একটু করে মনোযোগ দিয়ে পড়ুন

আপনি যদি কোন কিছু মনে রাখতে চান, তাহলে সেটাকে বিভিন্ন অংশে বা সেগমেন্টে ভাগ করা খুবই উপকারী। উদাহরণস্বরূপ: 4890 এবং 790 নম্বরের তুলনায় মনে রাখা সহজ। কারণ আমাদের মস্তিষ্ক বড় জিনিসের চেয়ে ছোট জিনিস বেশি মনে রাখতে পারে।

আপনাকে পড়া ও লেখার অভ্যাস করতে হবে

লেখা আমাদের মস্তিষ্কের আরও অনেক ক্ষেত্রকে উদ্দীপিত করে। লেখার সাথে জড়িত মস্তিষ্কের অংশগুলি তথ্যকে স্থায়ী স্মৃতিতে রূপান্তর করতে সহায়তা করে। উপরন্তু, যখন মানুষ কিছু লিখতে চায়, তখন তারা সেই বিষয়ের প্রতি বেশি মনোযোগ দেয় যা একটি স্থায়ী স্মৃতি তৈরিতে সাহায্য করে।

মার্কার ব্যবহার করা 

অনেকে পড়ার সময় মার্কার ব্যবহার করে এটি বেশ কার্যকর। কারণ যখন কোন কিছু চিহ্নিত করা হয় তখন সেই শব্দ বা বাক্যের প্রতি আগ্রহ এবং আকর্ষণ বৃদ্ধি পায়। পাশাপাশি এর উপর মস্তিষ্কের চাক্ষুষ প্রভাব বৃদ্ধি করে। ফলাফল মনে রাখার একটি সুবিধা।

সন্ধ্যার পর পড়াশোনা

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, মানুষের মস্তিষ্ক সকাল দশটার আগে কাজ করে না। এই সময় থেকে, মস্তিষ্কের কার্যকলাপ ধীরে ধীরে বৃদ্ধি পায়। মস্তিষ্কের কার্যকলাপ বৃদ্ধি করে, বিশেষ করে বিকালে। তাই বিকেলে বা সন্ধ্যায় পড়ার চেয়ে সকালে পড়া বেশি কার্যকর।

যথেষ্ট ঘুম

মস্তিষ্ক মূলত ঘুমের ভিতরে স্মৃতি তৈরির কাজ করে। গবেষণায় দেখা গেছে যে সারা দিনের কার্যকলাপ বা ঘটনা ঘুমের সময় স্মৃতিতে রূপান্তরিত হয়। ফলস্বরূপ, আপনি যদি কোন তথ্যকে স্মৃতিতে রূপান্তর করতে চান, তাহলে আপনাকে পড়ার পাশাপাশি পর্যাপ্ত ঘুম পেতে হবে।

মুখস্থ বিদ্যাকে না বলা

স্মৃতিচারণ ভাবনাকে অকেজো করে তোলে। পড়াশোনার আনন্দও নষ্ট করে। আপনি যদি কিছু না বুঝে মুখস্থ করে ফেলেন তবে তা বেশিদিন স্মৃতিতে রাখা যাবে না। কিন্তু এর অর্থ এই নয় যে সচেতনভাবে কিছুই মুখস্থ করা যাবে না। তথ্যের টুকরা যেমন: বছর, তারিখ, বইয়ের নাম, ব্যক্তির নাম, বিজ্ঞানের কোন উৎস ইত্যাদি বুঝতে হবে এবং মুখস্থ করতে হবে।

রিভাইজ

গবেষণায় দেখা গেছে যে আমরা পাঁচ দিন পর আজ সারাদিন যা পড়ি বা শুনি তার তিন-চতুর্থাংশ ভুলে যাই। এটি যাতে না ঘটে তার জন্য কিছু টিপস রয়েছে, যেমন: 45 মিনিটের পর 15 মিনিটের বিরতি এবং আপনার মনে সেই বিরতিতে পড়াটি পুনর্বিবেচনা করুন এবং আপনি কোথাও আটকে গেলে এটি আবার পরীক্ষা করুন। আজ গুরুত্বপূর্ণ কিছু পড়ুন এবং আগামীকাল ঘুমানোর আগে এটি পুনর্বিবেচনা করুন। তারপর এক সপ্তাহ পরে এটি সংশোধন করুন এবং এটি একটি দীর্ঘ সময়ের জন্য মনে রাখা হবে।

By Taher

আসসালামু-আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি-ওয়াবারাকাতুহু ।আমি মোঃ আবু তাহের ইসলাম (আমান)। আমি গয়াবাড়ি স্কুল এন্ড কলেজ পড়াশোনা করি । আমি এসএসসি পরীক্ষার্থী 2022 সাল । আমার সাবজেক্ট একাউন্টিং। আমি ভবিষ্যতে যেকোনো একটি ভালো প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে আমার জীবনকে পরিপূর্ণ আঙ্গিকে নতুন করে সাজানোর আশাবাদী । আমার পুরো জীবনটা হচ্ছে, একটা সরল অংকের মত । যতই দিন যাচ্ছে ততই আমি সমাধানের দিকে যাচ্ছি ইনশাআল্লাহ......নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী- তাই https://dailyinfo71.com/ ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি। ধন্যবাদ সবাইকে

Leave a Reply

Your email address will not be published.