বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বিল্ডিং কোনটি-২০২১

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বিল্ডিং কোনটি-২০২১

ঢাকা : উনিশ শতকের শুরু থেকে আকাশচুম্বী ভবন নির্মাণ নিয়ে গবেষণা চলছে। কিন্তু বিজ্ঞানীদের বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছিল। আইফেল টাওয়ার নির্মাণের পর বিষয়টি আরও এক ধাপ এগিয়ে যায়। সবচেয়ে বড় সমস্যা ছিল ভূমিকম্প, ভবনটির নিজস্ব ওজন, শক্তিশালী বায়ুচাপ, এর আকার এবং আকৃতি।

আর এই উন্নতির পিছনে আমাদের বাংলার মেধাবী সন্তানদের একজনের হাত ছিল, তিনি হলেন ফজলুর রহমান খান। সবাই তাকে এফ রহমান নামে চেনে। চলুন দেখে নিই বাংলাদেশের কিছু উঁচু ভবন।বাংলাদেশের সবচেয়ে উঁচু ভবনের তালিকা বাংলাদেশের উচ্চ-ভবনগুলির সরকারী উচ্চতার উপর ভিত্তি করে।

সিটি সেন্টার: মতিঝিলে দৈনিক বাংলার কোণে ওরিয়ন গ্রুপ এই ৩৭ তলা ভবনটি নির্মাণ করেছে। ৫৬১ ফুট, এটি দেশের সবচেয়ে উঁচু ভবন।

সিটি ব্যাংক টাওয়ার: এটি দেশের দ্বিতীয় উচ্চতম ভবন। এটি রাজধানীর বাণিজ্যিক এলাকা মতিঝিলে অবস্থিত। ৩৫৮.৬৯ ফুট উঁচু ভবনটিতে ৩৪ তলা রয়েছে। এটি দেশের প্রধান আর্থিক প্রতিষ্ঠান সিটি ব্যাংকের সদর দপ্তর।

বাংলাদেশে ব্যাংক: ব্যাংক ভবন বাংলাদেশের তৃতীয় সর্বোচ্চ ভবন। ১৩৭ মিটার উঁচু ভবনটিতে ৩১ তলা রয়েছে। ভবনটি ১৯৮৫সালে নির্মিত হয়েছিল।

গুলশান টাওয়ার: গুলশান টাওয়ার ২০১৪ সালে নির্মিত হয়েছিল। এটি রাজধানীর গুলশানে অবস্থিত। 125 মিটার উঁচু ভবনটিতে ৩০ তলা রয়েছে। এটি মূলত বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহৃত হয়। এটি দেশের চতুর্থ উচ্চতম ভবন।

ইস্টার্ন ফেডারেল ক্রেডিট ইউনিয়ন বিমা ভবন: এটি মতিঝিলে অবস্থিত। ৩৩১ ফুট উঁচু এই ভবনটি বাংলাদেশে উচ্চতার দিক থেকে পঞ্চম স্থানে রয়েছে। এই লম্বা ভবনটি মোট ২৭ তলা নিয়ে নির্মিত হয়েছে। এটি ইস্টার্ন ফেডারেল ক্রেডিট ইউনিয়ন ইন্স্যুরেন্সের সদর দপ্তর। ১৯৭২ সালে নির্মিত, ভবনটি ১৯৮৫ পর্যন্ত বাংলাদেশের সবচেয়ে উঁচু আকাশচুম্বী ভবন হিসেবে তালিকাভুক্ত ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.